Limited-Time Discount | Enroll today and learn risk-free with our 30-day money-back guarantee.

Login

SIGN UP for FREE

ORDER NOW

Login
thumbnail

ফ্রিল্যান্সিং কনটেস্ট এর গোপন কিছু টিপস

অনেক ফ্রিল্যান্সার প্রোজেক্টে বিড করার পরিবর্তে প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে বেশি পছন্দ করেন। ফ্রিল্যান্সিং জব সাইটগুলোও এধরনের বিষয়ে বেশি আগ্রহ দেখায়। প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার সুবিধে অনেক। বিড করে কাজ না পাওয়া পর্যন্ত নিজের যোগ্যতা দেখানোর সুযোগ থাকে না। প্রতিযোগিতায় সরাসরি ভাল কাজ করে নিজেকে তুলে ধরা যায়। এছাড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কারের অর্থমুল্য সাধারনত বিড করা কাজের থেকে বেশি থাকে।
ঘরে বসে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়ুন

ই-লার্ন বাংলাদেশ এর ভিডিও টিউটোরিয়াল কোর্স করুন

বিভিন্ন বিষয় শিখতে এখন আর ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। ভিডিও টিউটোরিয়াল নিয়ে ঘরে বসেই শিখুন বিভিন্ন ধরনের প্রফেশনাল মানের কাজ।

বিস্তারিত পড়ুন
প্রতিযোগিতার অনেকগুলো ধরন থাকে। এদের প্রত্যেকেরই সুবিধা-অসুবিধা দুই রয়েছে। একেকটি এককজনের জন্য মানানসই। এগুলো বিবেচনা করে নিজের জন্য মানানসই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে ভাল ফল পেতে পারেন।
ওপেন বনাম হিডেন কনটেস্টঃ
ওপেন প্রতিযোগিতায় অন্য প্রতিযোগিরা যে ডিজাইন জমা দিয়েছেন সেগুলো দেখা যায়। ক্লায়েন্ট কোন লোগো পছন্দ করছেন সেটা জানা যায় তার দেয়া রেটিং থেকে। ফলে একদিকে যেমন লোগো স্টাইল সম্পর্কে স্পষ্ট ধারনা পাওয়া যায় অন্যদিকে ক্লায়েন্টের পছন্দ-অপছন্দ জেনে তারসাথে মানানসই ডিজাইন করা যায়। এছাড়া কেউ যদি এতটাই ভাল ডিজাইন জমা দেন যার সাথে প্রতিযোগিতা করা সম্ভব না তাহলে সেই প্রতিযোগিতার বদলে অন্য প্রতিযোগিতার দিকে মনোযোগ দেয়া যায়।
অন্যদিকে হিডেন বা সিলড কনটেস্টে অন্য প্রতিযোগিদের জমা দেয়া ডিজাইন দেখা যায় না। কোন কোন সাইটে অন্যদের রেটিং জানা যায়, কোন কোন সাইটে সেটাও জানা যায় না (যেমন ফ্রিল্যান্সার)।
হিডেন কনটেস্টের সুবিধা হলো আপনার ভালো একটি আইডিয়া আরেকজন অনুকরন করে আপনার চেয়ে ভাল ডিজাইন তৈরী করতে পারে না। যারা ক্রিয়েটিভ কিছু তৈরীতে পারদর্শী তাদের জন্য এগুলো বেশি উপযোগি।

গ্রাফিক ডিজাইন শিখে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়তে ভিডিও টি দেখুন

আরও ভিডিও
বিজ্ঞাপন
কোন ডিজাইনার স্টক ইমেজ ব্যবহার করলে বা অন্য ডিজাইন নকল করলে সাধারনত অন্য ডিজাইনাররা সেটা ধরে ফেলেন। হিডেন কনটেস্টে সেই সুযোগ থাকে না। ফলে অনেকে একে স্টার্ট ব্যবহারের সুযোগ হিসেবে ব্যবহার করেন। মনে রাখা ভাল স্টক আর্ট ব্যবহার করলে কোন এক সময় ধরা পড়তেই হবে।
বিবেচনা করতে পারেন এভাবে, যদি নিজস্ব ভাল আইডিয়া অনুযায়ী সুন্দর ডিজাইন করতে পারেন তাহলে হিডেন কন্টেষ্টে অংশ নিন, যদি আইডিয়া খুজে না পান তাহলে ওপেন কনটেস্টে অন্যদের ডিজাইন দেখে ধারনা নিন।
গ্যারান্টেড বনাম নন গ্যারান্টেড কনটেস্টঃ
গ্যারান্টেড কনটেস্ট অর্থ ডিজাইনাররা যে ডিজাইনগুলো জমা দেবেন ক্লায়েন্ট তারমধ্যে একটি ডিজাইন নিতে বাধ্য থাকবেন। অন্য কথায়, কিছু টাকা আগেই জমা রাখতে হয়। যদি নিতান্তই কোন ডিজাইন পছন্দ না হয় এবং তিনি ডিজাইন না নেন তাহলে সেই টাকা সেরা ডিজাইনারদের ভাগ করে দেয়া হয়।

গ্যারান্টেড ডিজাইন কনটেস্ট তুলনামুলক নিরাপদ। বলে রাখা ভাল অনেক গ্যারান্টেড কনটেস্ট থেকেও ডিজাইন না নেয়ার ঘটনা ঘটে।
অন্যদিকে নন-গ্যারান্টেড কনটেস্ট ক্লায়েন্ট নাও নিতে পারেন। জব ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলো বিনা টাকায় প্রতিযোগিতা আহ্বান করার সুযোগ দেয়। ফলে এমন ঘটনাও ঘটে যেখানে ক্লায়েন্ট বিনা খরচে প্রতিযোগিতা আহ্বান করেন, সেখানে জমা দেয়া ডিজাইন থেকে আইডিয়া সংগ্রহ করেন, এরপর ডিজাইন না নিয়ে সরে যান। এটা এক ধরনের প্রতারনা যা প্রায়ই ঘটে।
কিছূ সংখ্যক ক্লায়েন্ট ইচ্ছে করেই গ্যারান্টেড কন্টেষ্ট চালূ করেন না। তাদের যুক্তি, এজন্য যে টাকা জব সাইটকে দিতে হয় সেই টাকা পুরস্কার হিসেবে ডিজাইনারকে দেবেন। তিনি পুরস্কারের টাকা কমাতে চান না।
সাধারনভাবে বিবেচনা করতে পারেন এভাবে, মুলত গ্যারান্টেড কনটেস্টে অংশ নেবেন, নন-গ্যারান্টেড কনটেস্টে অংশ নেয়ার সময় ক্লায়েন্টের প্রোফাইল দেখে নেবেন।
কম টাকা বনাম বেশি টাকার প্রতিযোগিতাঃ
প্রতিটি সাইটে প্রতিযোগিতার পুরস্কারের টাকা নির্দিষ্ট করা থাকে। কোথাও ৩০ ডলার কোথাও ৩০০ ডলার। অনেক ক্লায়েন্ট এর থেকে অনেক বেশি পুরস্কার ঘোষনা করেন। স্বাভাবিকভাবেই ডিজাইনারদের আগ্রহ থাকে বেশি পরিমান পুরস্কারের দিকে।
বিষয়টি এভাবে দেখতে পারেন, ক্লায়েন্ট অসাধারন কিছু চান বলেই বেশি টাকা দিতে চেয়েছেন। আপনার কাজকে যদি অসাধারন মনে করেন তবেই এতে অংশ নিন। সমস্যার দিক হচ্ছে এতে অন্য যারা অংশ নেবেন তাদের অনেকেই বহু বছর ধরে কাজ করছেন, তাদেরকে পেছনে ফেলে পুরস্কার জিততে হবে।

অন্যদিকে অল্প টাকার পুরস্কারের অংশ নেয়া প্রতিযোগি কম। সেকারনে পুরস্কার জেতা তুলনামুলক সহজ মনে হতে পারে।
শর্তযুক্ত প্রতিযোগিতাঃ
অনেক ক্লায়েন্ট প্রতিযোগিতার সাথে অন্য কাজের শর্ত জুড়ে দেন। লোগোর সাথে বিজনেস কার্ড ডিজাইন করতে হবে একটি সাধারন শর্ত। কিংবা এক কাজ করলে পরবর্তিতে অন্য কাজ পাওয়া যাবে ইত্যাদি।
আশা করি লোগো ডিজাইন কনটেস্ট নিয়ে আপনি আর কোন দ্বিধা দন্দের মধ্যে পরতে হবেনা। আমাদের এ রকম আরও গুরুত্বপূর্ণ ও হেল্পফুল পোস্ট পড়তে ই-লার্ন এর ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে এখানেই শেষ করছি। সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। আসসালামু আলাইকুম।

|| Design by Mamunur Rashid ||

Payment
গ্রাফিক ডিজাইন ওয়েব ডিজাইন আউটসোর্সিং এম এস অফিস কম্পিউটার টিপস ফটো এডিটিং
thumbnail

ফ্রিল্যান্সিং কনটেস্ট এর গোপন কিছু টিপস

অনেক ফ্রিল্যান্সার প্রোজেক্টে বিড করার পরিবর্তে প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে বেশি পছন্দ করেন। ফ্রিল্যান্সিং জব সাইটগুলোও এধরনের বিষয়ে বেশি আগ্রহ দেখায়। প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার সুবিধে অনেক। বিড করে কাজ না পাওয়া পর্যন্ত নিজের যোগ্যতা দেখানোর সুযোগ থাকে না। প্রতিযোগিতায় সরাসরি ভাল কাজ করে নিজেকে তুলে ধরা যায়। এছাড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কারের অর্থমুল্য সাধারনত বিড করা কাজের থেকে বেশি থাকে।
ঘরে বসে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়ুন

ই-লার্ন বাংলাদেশ এর ভিডিও টিউটোরিয়াল কোর্স করুন

বিভিন্ন বিষয় শিখতে এখন আর ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। ভিডিও টিউটোরিয়াল নিয়ে ঘরে বসেই শিখুন বিভিন্ন ধরনের প্রফেশনাল মানের কাজ।

বিস্তারিত পড়ুন
প্রতিযোগিতার অনেকগুলো ধরন থাকে। এদের প্রত্যেকেরই সুবিধা-অসুবিধা দুই রয়েছে। একেকটি এককজনের জন্য মানানসই। এগুলো বিবেচনা করে নিজের জন্য মানানসই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে ভাল ফল পেতে পারেন।
ওপেন বনাম হিডেন কনটেস্টঃ
ওপেন প্রতিযোগিতায় অন্য প্রতিযোগিরা যে ডিজাইন জমা দিয়েছেন সেগুলো দেখা যায়। ক্লায়েন্ট কোন লোগো পছন্দ করছেন সেটা জানা যায় তার দেয়া রেটিং থেকে। ফলে একদিকে যেমন লোগো স্টাইল সম্পর্কে স্পষ্ট ধারনা পাওয়া যায় অন্যদিকে ক্লায়েন্টের পছন্দ-অপছন্দ জেনে তারসাথে মানানসই ডিজাইন করা যায়। এছাড়া কেউ যদি এতটাই ভাল ডিজাইন জমা দেন যার সাথে প্রতিযোগিতা করা সম্ভব না তাহলে সেই প্রতিযোগিতার বদলে অন্য প্রতিযোগিতার দিকে মনোযোগ দেয়া যায়।
অন্যদিকে হিডেন বা সিলড কনটেস্টে অন্য প্রতিযোগিদের জমা দেয়া ডিজাইন দেখা যায় না। কোন কোন সাইটে অন্যদের রেটিং জানা যায়, কোন কোন সাইটে সেটাও জানা যায় না (যেমন ফ্রিল্যান্সার)।
হিডেন কনটেস্টের সুবিধা হলো আপনার ভালো একটি আইডিয়া আরেকজন অনুকরন করে আপনার চেয়ে ভাল ডিজাইন তৈরী করতে পারে না। যারা ক্রিয়েটিভ কিছু তৈরীতে পারদর্শী তাদের জন্য এগুলো বেশি উপযোগি।

গ্রাফিক ডিজাইন শিখে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়তে ভিডিও টি দেখুন

আরও ভিডিও
বিজ্ঞাপন
কোন ডিজাইনার স্টক ইমেজ ব্যবহার করলে বা অন্য ডিজাইন নকল করলে সাধারনত অন্য ডিজাইনাররা সেটা ধরে ফেলেন। হিডেন কনটেস্টে সেই সুযোগ থাকে না। ফলে অনেকে একে স্টার্ট ব্যবহারের সুযোগ হিসেবে ব্যবহার করেন। মনে রাখা ভাল স্টক আর্ট ব্যবহার করলে কোন এক সময় ধরা পড়তেই হবে।
বিবেচনা করতে পারেন এভাবে, যদি নিজস্ব ভাল আইডিয়া অনুযায়ী সুন্দর ডিজাইন করতে পারেন তাহলে হিডেন কন্টেষ্টে অংশ নিন, যদি আইডিয়া খুজে না পান তাহলে ওপেন কনটেস্টে অন্যদের ডিজাইন দেখে ধারনা নিন।
গ্যারান্টেড বনাম নন গ্যারান্টেড কনটেস্টঃ
গ্যারান্টেড কনটেস্ট অর্থ ডিজাইনাররা যে ডিজাইনগুলো জমা দেবেন ক্লায়েন্ট তারমধ্যে একটি ডিজাইন নিতে বাধ্য থাকবেন। অন্য কথায়, কিছু টাকা আগেই জমা রাখতে হয়। যদি নিতান্তই কোন ডিজাইন পছন্দ না হয় এবং তিনি ডিজাইন না নেন তাহলে সেই টাকা সেরা ডিজাইনারদের ভাগ করে দেয়া হয়।

গ্যারান্টেড ডিজাইন কনটেস্ট তুলনামুলক নিরাপদ। বলে রাখা ভাল অনেক গ্যারান্টেড কনটেস্ট থেকেও ডিজাইন না নেয়ার ঘটনা ঘটে।
অন্যদিকে নন-গ্যারান্টেড কনটেস্ট ক্লায়েন্ট নাও নিতে পারেন। জব ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলো বিনা টাকায় প্রতিযোগিতা আহ্বান করার সুযোগ দেয়। ফলে এমন ঘটনাও ঘটে যেখানে ক্লায়েন্ট বিনা খরচে প্রতিযোগিতা আহ্বান করেন, সেখানে জমা দেয়া ডিজাইন থেকে আইডিয়া সংগ্রহ করেন, এরপর ডিজাইন না নিয়ে সরে যান। এটা এক ধরনের প্রতারনা যা প্রায়ই ঘটে।
কিছূ সংখ্যক ক্লায়েন্ট ইচ্ছে করেই গ্যারান্টেড কন্টেষ্ট চালূ করেন না। তাদের যুক্তি, এজন্য যে টাকা জব সাইটকে দিতে হয় সেই টাকা পুরস্কার হিসেবে ডিজাইনারকে দেবেন। তিনি পুরস্কারের টাকা কমাতে চান না।
সাধারনভাবে বিবেচনা করতে পারেন এভাবে, মুলত গ্যারান্টেড কনটেস্টে অংশ নেবেন, নন-গ্যারান্টেড কনটেস্টে অংশ নেয়ার সময় ক্লায়েন্টের প্রোফাইল দেখে নেবেন।
কম টাকা বনাম বেশি টাকার প্রতিযোগিতাঃ
প্রতিটি সাইটে প্রতিযোগিতার পুরস্কারের টাকা নির্দিষ্ট করা থাকে। কোথাও ৩০ ডলার কোথাও ৩০০ ডলার। অনেক ক্লায়েন্ট এর থেকে অনেক বেশি পুরস্কার ঘোষনা করেন। স্বাভাবিকভাবেই ডিজাইনারদের আগ্রহ থাকে বেশি পরিমান পুরস্কারের দিকে।
বিষয়টি এভাবে দেখতে পারেন, ক্লায়েন্ট অসাধারন কিছু চান বলেই বেশি টাকা দিতে চেয়েছেন। আপনার কাজকে যদি অসাধারন মনে করেন তবেই এতে অংশ নিন। সমস্যার দিক হচ্ছে এতে অন্য যারা অংশ নেবেন তাদের অনেকেই বহু বছর ধরে কাজ করছেন, তাদেরকে পেছনে ফেলে পুরস্কার জিততে হবে।

অন্যদিকে অল্প টাকার পুরস্কারের অংশ নেয়া প্রতিযোগি কম। সেকারনে পুরস্কার জেতা তুলনামুলক সহজ মনে হতে পারে।
শর্তযুক্ত প্রতিযোগিতাঃ
অনেক ক্লায়েন্ট প্রতিযোগিতার সাথে অন্য কাজের শর্ত জুড়ে দেন। লোগোর সাথে বিজনেস কার্ড ডিজাইন করতে হবে একটি সাধারন শর্ত। কিংবা এক কাজ করলে পরবর্তিতে অন্য কাজ পাওয়া যাবে ইত্যাদি।
আশা করি লোগো ডিজাইন কনটেস্ট নিয়ে আপনি আর কোন দ্বিধা দন্দের মধ্যে পরতে হবেনা। আমাদের এ রকম আরও গুরুত্বপূর্ণ ও হেল্পফুল পোস্ট পড়তে ই-লার্ন এর ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে এখানেই শেষ করছি। সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। আসসালামু আলাইকুম।

আপনার মতামত লিখুনঃ