Limited-Time Discount | Enroll today and learn risk-free with our 30-day money-back guarantee.

Login

SIGN UP for FREE

ORDER NOW

Login
thumbnail

আপওয়ার্ক-এর মূল বিষয় সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

আমরা যারা ফ্রিল্যান্সার তারা সবাই আপওয়ার্ক মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে অনেক কিছুই জানি। আসলে আপওয়ার্ক একটি জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্স প্লাটফর্ম। এখানে লক্ষ লক্ষ পেশাজীবী ফ্রিল্যান্সার অনেক ভালো ভাবেই কাজ করে যাচ্ছে। আপনি যদি একজন ফ্রিল্যান্সার হয়ে আপনার প্রতিভা প্রস্ফুটিত করতে চান তাহলে এই আন্তর্জাতিক প্লাটফর্মটি আপনার জন্য শ্রেয়। মূলত, আপওয়ার্কে একটি কাজের বোর্ড যেখানে ক্লায়েন্ট এর পোস্ট প্রকল্প।
ঘরে বসে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়ুন

ই-লার্ন বাংলাদেশ এর ভিডিও টিউটোরিয়াল কোর্স করুন

বিভিন্ন বিষয় শিখতে এখন আর ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। ভিডিও টিউটোরিয়াল নিয়ে ঘরে বসেই শিখুন বিভিন্ন ধরনের প্রফেশনাল মানের কাজ।

বিস্তারিত পড়ুন
ফ্রিল্যান্সাররা প্রস্তাব জমা এবং এই প্রকল্পগুলি জিততে বিড করে। প্রতিটি প্রকল্প সম্পন্ন হওয়ার পরে, ক্লায়েন্ট এবং ফ্রিল্যান্সার উভয়ই একে অপরের পর্যালোচনা ছেড়ে চলে যায় - শীর্ষস্থানে সেরা পদক্ষেপে সহায়তা করে। এখান থেকে কাজ করে সর্বোচ্চ মানের ক্লায়েন্টদের খুঁজে পাওয়ার অপার সম্ভবনা আছে। আমি যে কাউকে আমি সুপারিশ করি তার সাথে দেখা করি যারা পাশাপাশি কিছু অতিরিক্ত অর্থ উপার্জন করতে আগ্রহী হয় অথবা তাদের পূর্ণ-সময়ের আয় প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে তারা দূরবর্তী অবস্থান করতে পারে। এটি অনেক বিশ্বস্ত মার্কেটপ্লেস।
কেনো আপওয়ার্কে কাজ করবো? আপনি হয়তো ভাবছেন যে এই মার্কেটপ্লেসে কোথায় থেকে কাজ করবেন। আসলে আপনি পৃথিবীর যেকোনো স্থান থেকেই কাজ করতে পারবেন আর সারা পৃথিবীর কাজ করতে পারবেন। অনেক মার্কেটপ্লেস আছে যেগুলোতে কাজ করে অনেক ফ্রিল্যান্সারই হতাশ হয়ে পরছে। কিন্তু এখানে সম্পূর্ণ আলাদা বিষয়। এখানে যেকোনো বায়ার কাজ পোষ্ট করলে সেখানে আপনি কাজের এপ্লাই করবেন। তারপরে বায়ার আপনার প্রোফাইল দেখে যদি আপনাকে হায়ার করে তাহলে তার শর্ত অনুযায়ী বিনা বাধায় কাজ করে দিতে পারবেন। বর্তমানে এডেক্স ও ইল্যান্স আপওয়ার্ক-এ এড হওয়ার ফলে কোনো কোনো ফ্রিল্যান্সার ৯২০ মিলিয়ন ডলার পর্যন্ত ইনকাম করেছেন।

গ্রাফিক ডিজাইন শিখে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়তে ভিডিও টি দেখুন

আরও ভিডিও
বিজ্ঞাপন
কাদের জন্য আপওয়ার্কে? আসলে সবার জন্যই আপওয়ার্কে মার্কেটপ্লেসে কাজ আছে। কিন্তু যারা যালোভাবে তারাতাড়ি ক্যরিয়ার গড়তে চান কিন্তু কাজ পাচ্ছেন না বা কাজ করতে সমস্যা হচ্ছে তাদের জন্য আপওয়ার্কে খুব সাহায্যকারী একটা মার্কেটপ্লেস। ভুল ধারনা থেকে বিরত থাকাঃ আসলে যেকোনো কাজের আগে কাজটি করার জন্য প্রস্তুতি গ্রহন করা উচিত। আর আপওয়ার্কে কাজের প্রস্তুতি সহজ বিষয় না। এখানে অনেক মানুষই ভুল করে থাকে। সেই ভুলটা হলো, যেদিন একাউন্ট খোলা হয় সেই দিন কাজ পাওয়ার আশা করা। আশা করি এই ধারনার থেকে আপনি সম্পূর্ণই বিরত থাকবেন।

চলুন জেনে নিই আপওয়ার্ক-এর মূল বিষয়গুলোঃ

প্রোফাইল তৈরি করাঃ
কনসালটেন্ট শব্দের অর্থ হলো পরামর্শ দাতা। আপনার যে কোন বিষয়ে বিশেষজ্ঞতা থাকলে (আইটি এক্সপার্ট, বিজনেস ম্যান, ইত্যাদি) আপনি সেই বিষয়ে অনলাইনে পরামর্শ দিয়ে প্রতি মাসে প্রচুর অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। বিশ্বে আমন অনেক কনসালটেন্ট আছে যারা অনলাইনে তার ক্লায়েন্টদের পরামর্শ দিয়ে থাকে। পড়াশুনার পাশাপাশি আপনি যে বিষয়ে এক্সপার্ট সেই বিষয়ে অনলাইনে পরামর্শ দেয়া শুরু করুন।
কাজ পাওয়ার চেষ্টা করাঃ
আপওয়ার্ক একাউন্ট খোলার পরে আপনি কাজ পাওয়ার জন্য আপওয়ার্ক-এর সার্চ বক্সে যান। এখানে আপনি যে যে কাজে পারদর্শী সে সে কাজ গুলো সার্চ করুন। প্রথমে আপনি কাজটা করে কত টাকা পাচ্ছেন সেটা একদম ই চিন্তা না করে আপনি বায়ার এর কাছ থেকে কিছু ভাল রিভিউ নেয়ার চেষ্টা করুন যেটা প্রথমে টাকার থেকে ও অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।এবং সে জন্য ঘন্টা বেসিস কাজগুলি না করে ফিক্সড প্রাইস এর কাজগুলি করলে আপনার জন্য ভাল হবে।
সে সব কাজের জন্য ই এপ্লাই করবেন যে কাজ আপনি পারবেন এবং আপনি পুরাপুরি আত্মবিশ্বাসী যে আপনি পারবেন। না পারা কাজে এপ্লাই করে কোন রেস্পন্স পাওয়া যায় কিনা এরকম চিন্তা করে জব এ এপ্লাই করলে বিপদে ও পরতে পারেন। আগে আপনি প্রতি সপ্তাহে ২০ টা করে জব এর জন্য এপ্লাই করতে পারতেন এখন কিন্তু সেই সুযোগ নেই। এখন আপনি মাস এ ৩০টা জব এর জন্য এপ্লাই করতে পারবেন। তাই আপনি যে কাজে আত্মবিশ্বাসী শুধু সেই কাজের জন্য অ্যাপ্লাই করেন।
রেটঃ
প্রত্যেক ফ্রিল্যান্সারের জন্য এই রেট বিষয়টা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আপওয়ার্ক-এ আপনি ২ ধরনের রেট পাবেন। সেগুলো হলোঃ Fixed Price ও Hourly rate.

চলুন জেনে নেওয়া যাক বিষয়গুলো সম্পর্কেঃ

Fixed Price: Fixed Price বলতে বোঝায় যে কাজের জন্য পারিশ্রমিক নির্ধারিত। প্রথমে এই ধরনের কাজগুলো করলে ভাল হবে। কারন এখানে আপনি আপনার নিজের মতো টাইম নিয়ে কাজ করতে পারবেন, যদিও বায়ারেরো একটা টাইম লিমিট থাকবে তারপরও আপনি বায়ার এর সাথে কথা বলে টাইম বাড়িয়ে নিতে পারবেন। কিছু কিছু ক্ষেত্রে অনেক সুবিধা যেমন আপনি ৩ ঘন্টায় একটা কাজ শেষ করে ধরুন ৫০ ডলার ইনকাম করে ফেললেন। কিন্তু ঘণ্টায় কাজ করলে আপনি কি প্রতি ঘণ্টায় ২৫ ডলার নিতে পারবেন? আবার অসুবিধা হল আপনার বায়ার আপনাকে একটা নিয়ে অনেক দিন ঘুরাতেও পারে, এইটা ঠিক করতে হবে, ওইটা ঠিক মতো হয় নাই এরকম কিছু অযুহাত দেখাবে।
Hourly rate Hourly rate মানে হলো, বায়ার আপনার দ্বারা কিছু কাজ করে নিবে এবং আপনাকে বলবেন যে আপনি সেই কাজটা করতে কতো টাকা নিতে চান। তার পরে আপনি যতো ঘন্টায় কাজটা সম্পুন্ন করে দিবেন সেই অনুযায়ী আপনার পারিশ্রমিক দিবে।
আশা করি আপনারা আপওয়ার্ক সম্পর্কে কিছু বুঝতে পারছেন। সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে এখানেই শেষ করছি। আসসালামু আলাইকুম।

|| Design by Mamunur Rashid ||

Payment
গ্রাফিক ডিজাইন ওয়েব ডিজাইন আউটসোর্সিং এম এস অফিস কম্পিউটার টিপস ফটো এডিটিং
thumbnail

আপওয়ার্ক-এর মূল বিষয় সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

আমরা যারা ফ্রিল্যান্সার তারা সবাই আপওয়ার্ক মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে অনেক কিছুই জানি। আসলে আপওয়ার্ক একটি জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্স প্লাটফর্ম। এখানে লক্ষ লক্ষ পেশাজীবী ফ্রিল্যান্সার অনেক ভালো ভাবেই কাজ করে যাচ্ছে। আপনি যদি একজন ফ্রিল্যান্সার হয়ে আপনার প্রতিভা প্রস্ফুটিত করতে চান তাহলে এই আন্তর্জাতিক প্লাটফর্মটি আপনার জন্য শ্রেয়। মূলত, আপওয়ার্কে একটি কাজের বোর্ড যেখানে ক্লায়েন্ট এর পোস্ট প্রকল্প।
ঘরে বসে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়ুন

ই-লার্ন বাংলাদেশ এর ভিডিও টিউটোরিয়াল কোর্স করুন

বিভিন্ন বিষয় শিখতে এখন আর ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। ভিডিও টিউটোরিয়াল নিয়ে ঘরে বসেই শিখুন বিভিন্ন ধরনের প্রফেশনাল মানের কাজ।

বিস্তারিত পড়ুন
ফ্রিল্যান্সাররা প্রস্তাব জমা এবং এই প্রকল্পগুলি জিততে বিড করে। প্রতিটি প্রকল্প সম্পন্ন হওয়ার পরে, ক্লায়েন্ট এবং ফ্রিল্যান্সার উভয়ই একে অপরের পর্যালোচনা ছেড়ে চলে যায় - শীর্ষস্থানে সেরা পদক্ষেপে সহায়তা করে। এখান থেকে কাজ করে সর্বোচ্চ মানের ক্লায়েন্টদের খুঁজে পাওয়ার অপার সম্ভবনা আছে। আমি যে কাউকে আমি সুপারিশ করি তার সাথে দেখা করি যারা পাশাপাশি কিছু অতিরিক্ত অর্থ উপার্জন করতে আগ্রহী হয় অথবা তাদের পূর্ণ-সময়ের আয় প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে তারা দূরবর্তী অবস্থান করতে পারে। এটি অনেক বিশ্বস্ত মার্কেটপ্লেস।
কেনো আপওয়ার্কে কাজ করবো? আপনি হয়তো ভাবছেন যে এই মার্কেটপ্লেসে কোথায় থেকে কাজ করবেন। আসলে আপনি পৃথিবীর যেকোনো স্থান থেকেই কাজ করতে পারবেন আর সারা পৃথিবীর কাজ করতে পারবেন। অনেক মার্কেটপ্লেস আছে যেগুলোতে কাজ করে অনেক ফ্রিল্যান্সারই হতাশ হয়ে পরছে। কিন্তু এখানে সম্পূর্ণ আলাদা বিষয়। এখানে যেকোনো বায়ার কাজ পোষ্ট করলে সেখানে আপনি কাজের এপ্লাই করবেন। তারপরে বায়ার আপনার প্রোফাইল দেখে যদি আপনাকে হায়ার করে তাহলে তার শর্ত অনুযায়ী বিনা বাধায় কাজ করে দিতে পারবেন। বর্তমানে এডেক্স ও ইল্যান্স আপওয়ার্ক-এ এড হওয়ার ফলে কোনো কোনো ফ্রিল্যান্সার ৯২০ মিলিয়ন ডলার পর্যন্ত ইনকাম করেছেন।

গ্রাফিক ডিজাইন শিখে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়তে ভিডিও টি দেখুন

আরও ভিডিও
বিজ্ঞাপন
কাদের জন্য আপওয়ার্কে? আসলে সবার জন্যই আপওয়ার্কে মার্কেটপ্লেসে কাজ আছে। কিন্তু যারা যালোভাবে তারাতাড়ি ক্যরিয়ার গড়তে চান কিন্তু কাজ পাচ্ছেন না বা কাজ করতে সমস্যা হচ্ছে তাদের জন্য আপওয়ার্কে খুব সাহায্যকারী একটা মার্কেটপ্লেস। ভুল ধারনা থেকে বিরত থাকাঃ আসলে যেকোনো কাজের আগে কাজটি করার জন্য প্রস্তুতি গ্রহন করা উচিত। আর আপওয়ার্কে কাজের প্রস্তুতি সহজ বিষয় না। এখানে অনেক মানুষই ভুল করে থাকে। সেই ভুলটা হলো, যেদিন একাউন্ট খোলা হয় সেই দিন কাজ পাওয়ার আশা করা। আশা করি এই ধারনার থেকে আপনি সম্পূর্ণই বিরত থাকবেন।

চলুন জেনে নিই আপওয়ার্ক-এর মূল বিষয়গুলোঃ

প্রোফাইল তৈরি করাঃ
কনসালটেন্ট শব্দের অর্থ হলো পরামর্শ দাতা। আপনার যে কোন বিষয়ে বিশেষজ্ঞতা থাকলে (আইটি এক্সপার্ট, বিজনেস ম্যান, ইত্যাদি) আপনি সেই বিষয়ে অনলাইনে পরামর্শ দিয়ে প্রতি মাসে প্রচুর অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। বিশ্বে আমন অনেক কনসালটেন্ট আছে যারা অনলাইনে তার ক্লায়েন্টদের পরামর্শ দিয়ে থাকে। পড়াশুনার পাশাপাশি আপনি যে বিষয়ে এক্সপার্ট সেই বিষয়ে অনলাইনে পরামর্শ দেয়া শুরু করুন।
কাজ পাওয়ার চেষ্টা করাঃ
আপওয়ার্ক একাউন্ট খোলার পরে আপনি কাজ পাওয়ার জন্য আপওয়ার্ক-এর সার্চ বক্সে যান। এখানে আপনি যে যে কাজে পারদর্শী সে সে কাজ গুলো সার্চ করুন। প্রথমে আপনি কাজটা করে কত টাকা পাচ্ছেন সেটা একদম ই চিন্তা না করে আপনি বায়ার এর কাছ থেকে কিছু ভাল রিভিউ নেয়ার চেষ্টা করুন যেটা প্রথমে টাকার থেকে ও অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।এবং সে জন্য ঘন্টা বেসিস কাজগুলি না করে ফিক্সড প্রাইস এর কাজগুলি করলে আপনার জন্য ভাল হবে।
সে সব কাজের জন্য ই এপ্লাই করবেন যে কাজ আপনি পারবেন এবং আপনি পুরাপুরি আত্মবিশ্বাসী যে আপনি পারবেন। না পারা কাজে এপ্লাই করে কোন রেস্পন্স পাওয়া যায় কিনা এরকম চিন্তা করে জব এ এপ্লাই করলে বিপদে ও পরতে পারেন। আগে আপনি প্রতি সপ্তাহে ২০ টা করে জব এর জন্য এপ্লাই করতে পারতেন এখন কিন্তু সেই সুযোগ নেই। এখন আপনি মাস এ ৩০টা জব এর জন্য এপ্লাই করতে পারবেন। তাই আপনি যে কাজে আত্মবিশ্বাসী শুধু সেই কাজের জন্য অ্যাপ্লাই করেন।
রেটঃ
প্রত্যেক ফ্রিল্যান্সারের জন্য এই রেট বিষয়টা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আপওয়ার্ক-এ আপনি ২ ধরনের রেট পাবেন। সেগুলো হলোঃ Fixed Price ও Hourly rate.

চলুন জেনে নেওয়া যাক বিষয়গুলো সম্পর্কেঃ

Fixed Price: Fixed Price বলতে বোঝায় যে কাজের জন্য পারিশ্রমিক নির্ধারিত। প্রথমে এই ধরনের কাজগুলো করলে ভাল হবে। কারন এখানে আপনি আপনার নিজের মতো টাইম নিয়ে কাজ করতে পারবেন, যদিও বায়ারেরো একটা টাইম লিমিট থাকবে তারপরও আপনি বায়ার এর সাথে কথা বলে টাইম বাড়িয়ে নিতে পারবেন। কিছু কিছু ক্ষেত্রে অনেক সুবিধা যেমন আপনি ৩ ঘন্টায় একটা কাজ শেষ করে ধরুন ৫০ ডলার ইনকাম করে ফেললেন। কিন্তু ঘণ্টায় কাজ করলে আপনি কি প্রতি ঘণ্টায় ২৫ ডলার নিতে পারবেন? আবার অসুবিধা হল আপনার বায়ার আপনাকে একটা নিয়ে অনেক দিন ঘুরাতেও পারে, এইটা ঠিক করতে হবে, ওইটা ঠিক মতো হয় নাই এরকম কিছু অযুহাত দেখাবে।
Hourly rate Hourly rate মানে হলো, বায়ার আপনার দ্বারা কিছু কাজ করে নিবে এবং আপনাকে বলবেন যে আপনি সেই কাজটা করতে কতো টাকা নিতে চান। তার পরে আপনি যতো ঘন্টায় কাজটা সম্পুন্ন করে দিবেন সেই অনুযায়ী আপনার পারিশ্রমিক দিবে।
আশা করি আপনারা আপওয়ার্ক সম্পর্কে কিছু বুঝতে পারছেন। সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে এখানেই শেষ করছি। আসসালামু আলাইকুম।

আপনার মতামত লিখুনঃ