Limited-Time Discount | Enroll today and learn risk-free with our 30-day money-back guarantee.

Login

SIGN UP for FREE

ORDER NOW

Login
thumbnail

Logo design সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

লোগো ডিজাইন গ্রাফিক ডিজাইনারদের একটি গুরুত্বপুর্ন কাজ। এটি এক ধরণের গ্রাফিক চিহ্ন বা প্রতীক যা সাধারণতঃ বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, সংস্থা এবং সাহায্য-সহযোগিতার লক্ষ্যে পরিচিতির জন্য জনগণের কাছে তুলে ধরা হয়।শুধুমাত্র প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়েই লোগোর ব্যবহার সীমাবদ্ধ নেই। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লোগো রয়েছে। কিছু শহরেরও লোগা আছে। খেলাধূলায় নিয়োজিত ক্লাব বা দলেরও লোগো রয়েছে। এমনকি জনগণও ইচ্ছে করলে তাদের নিজেদের জন্যে লোগো তৈরী করতে পারে।
ঘরে বসে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়ুন

ই-লার্ন বাংলাদেশ এর ভিডিও টিউটোরিয়াল কোর্স করুন

বিভিন্ন বিষয় শিখতে এখন আর ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। ভিডিও টিউটোরিয়াল নিয়ে ঘরে বসেই শিখুন বিভিন্ন ধরনের প্রফেশনাল মানের কাজ।

বিস্তারিত পড়ুন
>লোগো কেনো ব্যবহার করা হয়?
সহজ ভাবে বলা যায় লোগো কোনো কোম্পানি বা কোনো প্রতিষ্ঠানের পরিচিতি তুলে ধরতে সাহায্য করে।একজন সাধারণ মানুষের চোখে লোগো মানে কোম্পানি বা প্রডাক্ট। যেহেতু লোগো কোনো প্রতিষ্ঠানের পরিচিতি তুলে ধরে কাজেই লোগোটি ডিজাইন করার সময় তাকে সুন্দর করা ও উক্ত প্রতিষ্ঠানকে প্রকাশ করাটাও প্রয়োজন। এ বিষয়টি ভাবতে গেলে প্রথমে নির্বাচন করতে হবে লোগোটি কোন ধরনের প্রতিষ্ঠানে ব্যবহার করা হবে। যেমন পৃথিবীর সুনামধন্য কোমল পানীয় কোম্পানী তাদের লোগোটি এমন ভাবে তৈরী করেছে যেনো দেখেই বোঝা যায় উক্ত লোগোটি তরল কোনো কিছু বুঝাচ্ছে।
>যেকোনো ধরনের লোগো তৈরী করার আগে কিছু বিষয়ে জেনে নেওয়া উচিত তা হলোঃ
১.লোগোটি কি নতুন ভাবে তৈরী করা হচ্ছে নাকি আগের লোগো-এর ধরণ পরিবর্তন করা হচ্ছে?
২. লোগোটি কি ধরনের প্রতিষ্ঠানে ব্যবহার করা হচ্ছে?
৩. লোগোটি সুন্দর হতে হবে।
৪. লোগোটি চাকচিক্য হতে হবে।
৫. লোগো দেখতে শুধু সুন্দর হলে হবে না, এতে ব্র্যান্ডের ম্যাসেজও থাকতে হবে। যাতে এটি কোম্পানির পণ্য বা সেবা সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণাও দেবে।

গ্রাফিক ডিজাইন শিখে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়তে ভিডিও টি দেখুন

আরও ভিডিও
বিজ্ঞাপন
> যেকোনো লোগো তৈরীর ক্ষেত্রে রং এর ব্যবহারটা সঠিকভাবে উপস্থাপন করতে হবে। সেক্ষেত্রে লোগোটি কোথায় ব্যবহার (বিজনেস কার্ড, লেটারহেড প্যাড, ওয়েবসাইট, পোষ্টার, টিশার্ট, ব্যানার, প্যাকেট, গাড়ি) করা হবে তা পূর্বেই নির্ধারণ করে নিতে হবে। উক্ত বিষয় নির্ধারণ করার পরে রং বাছাই করতে হবে। লোগো আসলে অনেকটা কালারফুল হতে হয়, সেজন্য আলাদা আলাদা রং ব্যবহার করাই শ্রেয়।
> আসলে কোনো কিছু তৈরীর জন্য প্রয়জনীয় উপকরণ দরকার। তেমনি একটি লোগো ডিজাইন করার জন্য কিছু সফটওয়্যার রয়েছে। তার মধ্যে বহুল ব্যবহৃত ২টি সফটওয়্যার হলোঃ
1: কোরেল ড্রঃ কোরেল ড্র একটি ভেক্টর ভিত্তিক গ্রাফিক্স সফটওয়্যার। টেক্সটও ফাইনাল প্রিন্ট বা ফিল্মে প্রিন্ট নেয়ার জন্য কোরেল ব্যবহার করতে হয়।
2: ইলাস্ট্রেটরঃ অ্যাডোবি ইলাস্ট্রেটর যা শুধু 'ইলাস্ট্রেটর' নামেই বেশি পরিচিত একটি ভেক্টর গ্রাফিক্স সম্পাদনাকারী। এর মাধ্যমে সকল গ্রাফিক্স ডিজাইন, লোগো, ব্যানার তৈরি করা যায়।
উপরিক্ত ২টি সফট ওয়্যার দিয়ে যে কেউ নিজের ইচ্ছা মতো যে কোনো ধরনের ডিজাইন করতে পারেন।
>লোগো তো তৈরী করে ফেললেন, এখন সামনে আসলো প্রদর্শনের ধাপ। আসলে এই ধাপটি হলো লোগোটিকে চাকচিক্য করার। আর এটা করার জন্য নিজের ইচ্ছা মতো যেকোনো মকআপব্যবহারকরতেপারেন।
সর্বশেষে বলতে চাই, যেকোনো ধরনের ডিজাইন সম্পুন্ন করার মূল বিষয়বস্তু হচ্ছে নিজের সৃজনশীলতা(Creativity). যে যতো ডিজাইনিং এর ওপর নতুনত্ব আনতে পারবে সে ততো সফলকাম হবে ইনশাআল্লাহ্‌।

|| Design by Mamunur Rashid ||

Payment
গ্রাফিক ডিজাইন ওয়েব ডিজাইন আউটসোর্সিং এম এস অফিস কম্পিউটার টিপস ফটো এডিটিং
thumbnail

Logo design সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

লোগো ডিজাইন গ্রাফিক ডিজাইনারদের একটি গুরুত্বপুর্ন কাজ। এটি এক ধরণের গ্রাফিক চিহ্ন বা প্রতীক যা সাধারণতঃ বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, সংস্থা এবং সাহায্য-সহযোগিতার লক্ষ্যে পরিচিতির জন্য জনগণের কাছে তুলে ধরা হয়।শুধুমাত্র প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়েই লোগোর ব্যবহার সীমাবদ্ধ নেই। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লোগো রয়েছে। কিছু শহরেরও লোগা আছে। খেলাধূলায় নিয়োজিত ক্লাব বা দলেরও লোগো রয়েছে। এমনকি জনগণও ইচ্ছে করলে তাদের নিজেদের জন্যে লোগো তৈরী করতে পারে।
ঘরে বসে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়ুন

ই-লার্ন বাংলাদেশ এর ভিডিও টিউটোরিয়াল কোর্স করুন

বিভিন্ন বিষয় শিখতে এখন আর ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। ভিডিও টিউটোরিয়াল নিয়ে ঘরে বসেই শিখুন বিভিন্ন ধরনের প্রফেশনাল মানের কাজ।

বিস্তারিত পড়ুন
>লোগো কেনো ব্যবহার করা হয়?
সহজ ভাবে বলা যায় লোগো কোনো কোম্পানি বা কোনো প্রতিষ্ঠানের পরিচিতি তুলে ধরতে সাহায্য করে।একজন সাধারণ মানুষের চোখে লোগো মানে কোম্পানি বা প্রডাক্ট। যেহেতু লোগো কোনো প্রতিষ্ঠানের পরিচিতি তুলে ধরে কাজেই লোগোটি ডিজাইন করার সময় তাকে সুন্দর করা ও উক্ত প্রতিষ্ঠানকে প্রকাশ করাটাও প্রয়োজন। এ বিষয়টি ভাবতে গেলে প্রথমে নির্বাচন করতে হবে লোগোটি কোন ধরনের প্রতিষ্ঠানে ব্যবহার করা হবে। যেমন পৃথিবীর সুনামধন্য কোমল পানীয় কোম্পানী তাদের লোগোটি এমন ভাবে তৈরী করেছে যেনো দেখেই বোঝা যায় উক্ত লোগোটি তরল কোনো কিছু বুঝাচ্ছে।
>যেকোনো ধরনের লোগো তৈরী করার আগে কিছু বিষয়ে জেনে নেওয়া উচিত তা হলোঃ
১.লোগোটি কি নতুন ভাবে তৈরী করা হচ্ছে নাকি আগের লোগো-এর ধরণ পরিবর্তন করা হচ্ছে?
২. লোগোটি কি ধরনের প্রতিষ্ঠানে ব্যবহার করা হচ্ছে?
৩. লোগোটি সুন্দর হতে হবে।
৪. লোগোটি চাকচিক্য হতে হবে।
৫. লোগো দেখতে শুধু সুন্দর হলে হবে না, এতে ব্র্যান্ডের ম্যাসেজও থাকতে হবে। যাতে এটি কোম্পানির পণ্য বা সেবা সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণাও দেবে।

গ্রাফিক ডিজাইন শিখে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়তে ভিডিও টি দেখুন

আরও ভিডিও
বিজ্ঞাপন
> যেকোনো লোগো তৈরীর ক্ষেত্রে রং এর ব্যবহারটা সঠিকভাবে উপস্থাপন করতে হবে। সেক্ষেত্রে লোগোটি কোথায় ব্যবহার (বিজনেস কার্ড, লেটারহেড প্যাড, ওয়েবসাইট, পোষ্টার, টিশার্ট, ব্যানার, প্যাকেট, গাড়ি) করা হবে তা পূর্বেই নির্ধারণ করে নিতে হবে। উক্ত বিষয় নির্ধারণ করার পরে রং বাছাই করতে হবে। লোগো আসলে অনেকটা কালারফুল হতে হয়, সেজন্য আলাদা আলাদা রং ব্যবহার করাই শ্রেয়।
> আসলে কোনো কিছু তৈরীর জন্য প্রয়জনীয় উপকরণ দরকার। তেমনি একটি লোগো ডিজাইন করার জন্য কিছু সফটওয়্যার রয়েছে। তার মধ্যে বহুল ব্যবহৃত ২টি সফটওয়্যার হলোঃ
1: কোরেল ড্রঃকোরেল ড্র একটি ভেক্টর ভিত্তিক গ্রাফিক্স সফটওয়্যার। টেক্সটও ফাইনাল প্রিন্ট বা ফিল্মে প্রিন্ট নেয়ার জন্য কোরেল ব্যবহার করতে হয়।
2: ইলাস্ট্রেটরঃ অ্যাডোবি ইলাস্ট্রেটর যা শুধু 'ইলাস্ট্রেটর' নামেই বেশি পরিচিত একটি ভেক্টর গ্রাফিক্স সম্পাদনাকারী। এর মাধ্যমে সকল গ্রাফিক্স ডিজাইন, লোগো, ব্যানার তৈরি করা যায়।
উপরিক্ত ২টি সফট ওয়্যার দিয়ে যে কেউ নিজের ইচ্ছা মতো যে কোনো ধরনের ডিজাইন করতে পারেন।
>লোগো তো তৈরী করে ফেললেন, এখন সামনে আসলো প্রদর্শনের ধাপ। আসলে এই ধাপটি হলো লোগোটিকে চাকচিক্য করার। আর এটা করার জন্য নিজের ইচ্ছা মতো যেকোনো মকআপব্যবহারকরতেপারেন।
সর্বশেষে বলতে চাই, যেকোনো ধরনের ডিজাইন সম্পুন্ন করার মূল বিষয়বস্তু হচ্ছে নিজের সৃজনশীলতা(Creativity). যে যতো ডিজাইনিং এর ওপর নতুনত্ব আনতে পারবে সে ততো সফলকাম হবে ইনশাআল্লাহ্‌।

আপনার মতামত লিখুনঃ